fbpx
শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:০০ অপরাহ্ন

চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে কয়েদী পালিয়েছে

আসিফ / ৬২২ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : বুধবার, ১৭ মার্চ, ২০২১
চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে কয়েদী পালিয়েছে
চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে কয়েদী পালিয়েছে

81 / 100

চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে কয়েদী পালিয়েছে। আজকে আপনাদের জানাবো চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে কিভাবে রুবেল পালিয়েছে।

চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারের কর্ণফুলী ভবনের পানিসমেন্ট সেল থেকে বের হয়ে পাশের  নির্মাণাধীন ৪ তলা ভবনের ছাদে উঠে য়ায় রুবেল । সেলের ও ঐ ভবনের ২২ ফুট দূরত্বের মধ্যে রয়েছে কারাগারে সুরক্ষা প্রাচীরের উচ্চতা প্রায় ১৮ ফুট এর পর ৬ ফুট প্রস্থের পায়ে হাঁটা পথের পাশেই সাড়ে ছয় ফুট উচ্চতার সীমানাপ্রাচীর যার উপরে রয়েছে কাঁটাতার।

চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগার

কিন্তু কল্পকাহিনীতে স্পাইডারম্যান এর অনুকরণে চারতলা ভবন থেকে লাফ দিয়ে সুরক্ষা প্রাচীর ডিঙিয়ে হত্যা মামলার আসামি রুবেল পালিয়ে যায়।

রুবেলের মোমেন্ট টা ছিল খুব দ্রুত গতিতে সকালবেলা তার স্থান থেকে বেরিয়ে আসে বেড়িয়ে আসার পর সে চার তলায় উঠে। এই চারতলা বিল্ডিং নিচ থেকে উচ্চতা ৪০ ফিট। ১৮ ফিট যে নিরাপত্তা ওয়াল আছে তার ধারণা ছিল ৪০ উচ্চতা থেকে লাফ দিলে সে ১৮ ফিট ওয়ালের ওপারে গিয়ে পরবে।আসলে ও তাই এবং সে স্পাইডারমেনকে হার মানিয়ে ৪০ ফিট উঁচু থেকে লাভ দিয়ে নিরাপত্তার ওয়ালের উপর দিয়ে বাইরে গিয়ে পড়ছে। যার উচ্চতা হচ্ছে লম্বালম্বিভাবে প্রায় ৬০ ফিট। চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগার।

চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগার, কারারক্ষীদের চোখ এবং সিসিটিভি ক্যামেরা ফাঁকি দিয়ে ১৮ ফুট উচ্চতার সুরক্ষা দেয়াল টপকে  পালিয়ে যাওয়া সম্ভব নয় বলে নিশ্চিত ছিল কারা কর্তৃপক্ষ। যে কারণে ৬ ফেব্রুয়ারি ভোরের রুবেল  কারাগার থেকে পালিয়ে গেলেও তিনদিন পর্যন্ত তার এই পালিয়ে যাওয়া নিশ্চিত করতে পারেনি।

চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে কয়েদী পালিয়েছে

চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে কয়েদী পালিয়েছে

 

৮ ই ফেব্রুয়ারি রাতে কয়েক সেকেন্ডে একটি সিসিটিভি ফুটেজে ধরা পড়ে রুবেলের ৪ তলা ভবন থেকে লাফিয়ে পড়ার দৃশ্য।

আবার তাকে আটকের পর রুবেল পুলিশের কাছে স্বীকার করেন । হত্যা মামলায় মৃত্যুদণ্ড হতে পারে এমন সঙ্কায় সে মৃত্যু ঝুঁকি নিয়েছিল।

সে মৃত্যুদণ্ডের রায় থেকে বাঁচার জন্য একটা মৃত্যুঝুঁকি নিয়ে প্রায় ৬০ ফুট উপর থেকে সীমানা দেয়াল পেরিয়েছে লাফ দিয়ে সীমানার ওপারে গিয়ে পড়ে। এখন থেকে লাফ দিলে যে কি হতে পারে সেটা তখন তার মাথায় ছিল না।

৮ ই ফেব্রুয়ারি সদরঘাট এলাকা থেকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে রুবেলকে। এর আগে পাঁচটি মামলায় তিনবার কারাগারে ছিল সে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন জানিয়েছে পুলিশ। সমাজ বিজ্ঞানীরা মনে করছেন এই ধরণের বিপদজনক ঘটনা এড়াতে কারাগারগুলোতে মোটিভেশনাল কার্যক্রম চালু করা দরকার।

ওদেরকে উৎসাহমূলক প্রেষণামূলক মোটিভেশনাল কিছু কাউন্সেলিং দিয়ে তাদেরকে আশ্বস্ত করতে হবে যে কারাগারটা নিরাপদ। এখানে তোমার নিরাপদ ব্যবস্থা রয়েছে। তুমি কি অপরাধ করেছ এটি চূড়ান্ত রায় না হওয়া পর্যন্ত নিরাপদ নিরাপদ থাকবে। এবং যাই চূড়ান্ত পর্যায়ের রায় হয় না কেন তোমাকে সেটা মানতেই হবে দেশের একজন সচেতন নাগরিক হিসেবে আইন মেনে চলতে হবে।

সুউচ্চ ভবন থেকে লাফিয়ে পড়তে গিয়ে তার সামান্য মচকে যায়। আর কাঁটাতারের বেড়া সীমানাপ্রাচীর পার হতে গিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে কেটে যায়।

চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগার

কোয়েল পাখির ডিম খেলে কি হয়? এর উপকারিতা ও অপকারিতা কি?

টার্কি মুরগি কম ডিম দিচ্ছে? যা করতে হবে

ফেসবুকে যুক্ত হউন


আপনার মতামত লিখুন :

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ